কফিল আহমেদঃ জন্মদিনে শুভেচ্ছা

বাঙলা ভাষার গানওয়ালা, যাঁদের গান আমি পছন্দ করি, তাঁদের সংখ্যা খুব বেশি নয় বোধয়৷ সাকুল্যে অর্ধশত বা এরকম হবেন হয়তো৷ তাঁরা কেউই নকলবিদ না৷ নকলবিদদের, যারা সারা জীবন শুধু নকলই করে গেছেন, তাদের আমি আসলে পছন্দ করি না৷ আই অনলি লাইক আর্টিস্ট৷ তো এদেশে যাঁদের (আর্টিস্ট) গানে অন্তরাত্মা জুড়ায় তাদের মধ্যে কফিল আহমেদ অন্যতম৷

সেই প্রথম যেদিন তাঁর গান শুনেছিলাম, সত্যিকার অর্থে সেদিন থেকেই মানুষটার প্রেমে পড়ে গেছি৷ আহা কী দারুণ সেসব গানের কথা, সুর; ‘গঙ্গাবুড়ি শোনো — এত সুন্দর নামটি তোমার কে দিয়েছে বলো’…

এরপর তার সেই আউট অব মার্কেট অ্যালবামটি, যার নাম ‘পাখির ডানায় দারুন শক্তি — গরুর চোখে মায়া’; অনেক খোঁজাখুঁজির পর আজিজ মার্কেটের একটা সিডির দোকান থেকে চড়া মূল্যে (তৎকালীন বাজার হিসেবে চার গুণ দাম) কিনেছিলাম৷ সেটার অবস্থা ছিলো কীরকম শুনুন৷ আসল অ্যালবাম তো নেই মার্কেটে বহুদিন৷ দোকানীরা করেছে কি, একটা পাঁচ টাকা দামের সিডিতে আসল অ্যালবামটি রাইট করে একটা ব্ল্যাং প্যাকেটে মুড়িয়ে বিক্রি করছিলো৷

সেই অ্যালবাম কিনলাম ঠিকই৷ কেনার পরে মনে হলো এটা এভেইলেবল করা দরকার৷ আর দেরি না করে নিজ দায়িত্বে বন্ধুদের পাঠাতে শুরু করেছিলাম৷

প্রথম বোধহয় দেখা কথা আড্ডা দিয়েছিলাম ছবির হাটে৷ এরপর তো কতো জায়গায়ই কথা হলো, দেখা হলো৷ যদ্দূর মনে পড়ছে কফিল ভাইয়ের প্রথম কনসার্ট দেখেছিলাম, ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সম্মেলনের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পর্বে৷ আহা, সে এক দেখার জিনিশ বটে৷ বুক আপনা থেকেই টান টান দাঁড়িয়ে যায়, ঘাড় ভাঙা ঘোড়াও উঠে দাঁড়ায়…

এরকম ‘রাজনীতি সচেতন অথচ শৈল্পিক’ সংগীত শিল্পী কি খুব বেশি আছে বাঙলাদেশে? গুনতে বসলে দু'টো আঙুল পেরুবে কি?

সংগীত শিল্পে এই কফিল আহমেদ, অরূপ রাহী, চিৎকার, সমগীত, প্রবর রিপন … এঁরাই তো দুঃসময়ে জ্বলে থাকা একেকটি আলোর শিখা৷

আজ কফিল ভাইয়ের জন্মদিন৷ মাঠে ময়দানে, সর্বজনের পক্ষের এই মানুষটির মঙ্গল হোক৷
কফিল ভাই দীর্ঘজীবী হোন… অনেক ভালবাসা আপনার জন্য৷

১ সেপ্টেম্বর ২০১৮


0 comments: