মেয়েটি সবকিছু ভাবতে ভাবতে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকেছিল

পৃথিবীতে মৃত্যুই একমাত্র প্রাকৃতিক
জন্ম মানেই কৃত্তিমতা, আধিপত্যের জয়গান
একটি ফড়িং উড়ে গ্যাছে আমার মন থেকে
আমি তাকে পুনর্বার মনে রাখার চেষ্টায় ব্যস্ত
প্রকৃতির পূর্ণদেহে যেটুকু ক্ষত
তা আমারই অবদান;
অদক্ষ সাঁতারু শয়তান, হাবুডুবু খায় পুকুরে

এবং মেয়েতিনটি আত্মহত্যাই করল! পুনর্বার ভাববার কোন অবকাশ রইল না তাদের। পত্রিকায় প্রকাশ, গত দুইদিনে তিন ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ...তারা আত্মহত্যা করেছে। প্রেমে ব্যর্থ হয়েই তিনজন আত্মহত্যা করেছে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

‘যতোই চেষ্টা করো পালাতে- তবুও তোমাকে ধরবে মৃত্যুই- জীবন থেকে যাবে অধরাই- কোন এক সময় তুমি ধরা পড়বে এভাবে- মৃত্যুর কাছে- এবং পড়তেই থাকবে- পড়তেই থাকবে- পড়তেই থাকবে- তোমরাই- অবশেষে একবারই আটকা পড়ে- বন্দী থাকবে খাঁচার ভেতর-’
এঁকেছেনঃ রাজীব দত্ত


এবং এই প্রেমব্যর্থ ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ বর্ণনা প্রকাশ রয়েছে। একেক দিনের একেক রগরগে বর্ণনা; ছেলেটি এগিয়ে যাচ্ছিল মেয়েটির দিকে, একপায়ে- দুইপায়ে, মেয়েটি পেছাচ্ছিল, এবং পেছাচ্ছিল, একসময় আটকে গেল, বন্ধ হয়ে গেল হৃদক্রিয়া, পিঠ ঠেকে গেল দেয়ালে, তারপর- তারপরই ঘটে গেল অনাকাঙ্খিত (না-কি কাঙ্খিত) ঘটনাটি। এভাবেই চলছিল- চলত- যদিনা বিয়ের প্রশ্ন তুলত মেয়েটি- এরপর- কিছুদিন কোন খোঁজ পাওয়া যায় না ছেলেটির!

মেয়েটি সবকিছু ভাবতে ভাবতে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকেছিল মেয়েটি সবকিছু ভাবতে ভাবতে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকেছিল মেয়েটি সবকিছু ভাবতে ভাবতে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকেছিল মেয়েটি সবকিছু ভাবতে  ভাবতে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকেছিল মেয়েটি সবকিছু মেয়েটি সবকিছু ভাবতে ভাবতে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকেছিল মেয়েটি সবকিছু ভাবতে ভাবতে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকেছিল মেয়েটি সবকিছু ভাবতে ভাবতে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকেছিল মেয়েটি সবকিছু ভাবতে  ভাবতে আত্মহত্যার দিকে ঝুঁকেছিল মেয়েটি সবকিছু

এসবই কেন যেন মনে হচ্ছিল তার, বারবার। এইসমস্ত চিন্তা মাথা থেকে বিদায়ের চেষ্টাও ব্যর্থ হচ্ছে। হোক, তবুও সে চেয়ার বের করল টেবিলের তল থেকে- পজিশন পছন্দ করলো- শক্তমতো- ফ্যানই পারফেক্ট- ফ্যানের লোহাই উত্তম বস্তু- হ্যাঁ- এবার একটা দড়ি দরকার- মায়ের শাড়িটাই ভালো- ১৩ হাত- বেশ শক্ত আছে বলেই মনে হচ্ছে- চেয়ারের ওপর দাঁড়িয়ে শক্ত করে বেঁধে ফেলল শাড়িটা- ফ্যানে- আর একটা অংশ গলার সাথে- কীসব উটকো চিন্তা মাথায় ঘুড়ছে- আবেগপ্রবণ হয়ে উঠছে পরিবেশ- ছোট ভাই-মা-বাবা- নাহ্ এইসব ভাবার সুযোগ নেই- বিদায় পৃথিবী- বিদায় মা-বাবা

একটা শব্দ শোনা গেল- বোধহয় চেয়ার পড়ে গেল- শাড়িটার পারফরমেন্স ভালোই- শক্ত করে গেঁথে গ্যাছে গলার সাথে- হঠাৎ- হঠাৎই পাল্টে গেল ভাবনা- ওলট-পালট হয়ে গেল সবকিছু- একটা অবলম্বন দরকার- আঁকড়ে ধরার- সামান্য হলেও- হ্যাঁ- কিছু একটা দরকার- অজান্তেই খুঁজছিল কোন কিছু- অবলম্বন- আঁকড়ে ধরার-

পৃথিবীর সমস্ত যৌন নিপীড়িত মানুষের প্রতি উৎসর্গীকৃত

1 টি মন্তব্য: