সৃজনে প্রকাশিত কবিতা বিষয়ক গদ্যটি ধরে সাম্য রাইয়ানের প্রতিবাদ, শ্বেতপত্রে প্রকাশিত


ম্যালা ম্যালা গালিগালাজ - ব্যক্তিগত আক্রমণ - হুমকি-ধামকি - বোকাচোদাদের হাস্যকর সব আলোচনা - না বুঝে-কম বুঝে মনোমালিন্য - সমালোচনার নামে ছ্যাড়াব্যাড়া গু - বক্তব্যকে কোন প্রকার প্রমাণ ছাড়াই মৌখিকভাবে অন্যের কাছে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করার বিপরীতে উদ্দেশ্যমূলক অনুপরিমান মুচকি হাসি


সৃজন এর গত ২১ তম সংখ্যায় (প্রকাশ: সেপ্টেম্বর ২০১১ খ্রি.) আমার লেখা একটি গদ্য প্রকাশিত হয়েছিল “আট স্বপ্নভূক কবির কবিতা নিয়ে পাঠপ্রতিক্রিয়াধর্মী কথাবার্তা” শিরোনামে। যেখানে ‘আট স্বপ্নভূক কবি’ হিসেবে উপস্থাপিত হয়েছিলেন, তারিফ উল হক শুভ্র সরখেল রাশেদুন্নবী সবুজ নুরে আলম দুর্জয় হেলাল জাহাঙ্গীর ইউসুফ আলমগীর মাইকেল রবিন সরকার এবং জ্যোতি আহমদ। যাঁরা প্রত্যেকেই নিজের কাব্যজগত নির্মাণে সক্রিয়। এবং রাশেদুন্নবী সবুজ কিংবা শুভ্র সরখেলের মতো, কেউ কেউ স্বকীয়তাও অর্জন করেছেন। আবারও প্রমাণিত হইল মাটি নড়ে। ‘আট স্বপ্নভূক কবির কবিতা’ প্রসঙ্গে আমার তীব্র বক্তব্যপূর্ণ গদ্যটি প্রকাশের পর অনেক বাজার চলতি খুচরো কথা শুনতে পাই; কয়েকজন আমাকেই বলেছেন- সরাসরি; বেশিরভাগ কথাই ভায়া হয়ে এসেছে। মাজা’র জোড় লেখাতেই প্রকাশিত হোক। আমি মন্তব্যকারিদের প্রত্যেককেই প্রত্য বা পরোভাবে অনুরোধ করেছিলাম তাদের বক্তব্য লিখিতভাবে পত্রিকা দফতরে জমা দিতে, তাহলে বিষয়টির গ্রহনযোগ্যতা থাকে।
কিন্তু তারা তা করেননি; স্পষ্ট করে বললে, করতে পারেননি; কারণ লেখার মতো শক্তি-সামর্থ্য (যোগ্যতা শব্দটিও ব্যবহার করা যেতে পারে) তাদের কারোরই নেই; তারা মূলত মুখে-মুখে ঝগড়া করতে চান, ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করতে চান; এটা তাদের চরম দুর্বলতাকেই প্রমাণ করে।

পাঠক, বুঝতে হবে ব্যাপারটা
হালকা বুঝলে হবে না, গভীরে যেতে হবে
বিজ্ঞানসম্মতভাবে বুঝতে হবে

প্রিয়, তুমি কার কোকাকোলা? বোঝ এবার




0 comments: